/এই সময়ে থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট

এই সময়ে থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট

গরমের এই সময়ে ফুল প্যান্টের চেয়ে শর্ট প্যান্ট পরতেই অনেকে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। কেননা গরমের কথা মাথায় রেখে সবাই চান আরামদায়ক ও ফ্যাশনেবল পোশাক পরতে। আর এই গরমে বাসায় প্যান্ট বা ট্রাউজার পরে থাকাটা অস্বস্তিরই বটে। তাই এ সময়ের ফ্যাশনেবল তরুণ-তরুণীদের প্রথম পছন্দ থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট। ঘরে কিংবা ঘরের বাইরে। সব জায়গাতেই ব্যবহার উপযোগী এই প্যান্ট। এখন অনেকেই জমকালো অনুষ্ঠানেও থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্টে পরে যান। এটা শুধু আমাদের দেশেই না, পশ্চিমা দেশেগুলোতে অনেক আগে থেকেই থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট ব্যবহার করেন প্রায় সব বয়সী লোক। যদিও আমাদের দেশে তরুণ-তরুণীরাই বেশি পছন্দ করেন থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট। আর এসব প্যান্টের চাহিদা বেশি থাকার কারণে কাপড় থেকে শুরু করে ডিজাইনেও এসেছে বেশ পরিবর্তন। থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্টগুলো সাধারণত সুতি, রিমি কটন, কটন, সিল্ক, কাশ্মিরি, উলন ও চেকের মধ্যে হয়। থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট একটু ফিটিং পরতেই সকলে পছন্দ করে। তার সঙ্গে থাকছে দুপাশে দুটি পকেট অনেক প্যান্টে এর বেশিও দেখা যায়। আবার কোনো কোনো প্যান্টের নিচের দিকে লাগানো হচ্ছে অন্য কাপড়ের কিছু অংশ, যাতে সেটি আরও আকর্ষণীয় হয়। টাইট ফিটিং এসব প্যান্টের সামনের অংশে চেন অথবা বিভিন্ন রকেমের স্টিলের বোতামও লাগানো হয়ে থাকে। উজ্জ্বল রঙের প্রাধান্য বেশি লক্ষ করা যায় এসব থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্টে। বাজারে ঘুরলেই চোখে পড়ে নানা বয়সীদের জন্য রয়েছে নানা ধরনের ডিজাইনের প্যান্ট। স্কুলগামী বাচ্চা থেকে শুরু করে তরুণ ছেলে-মেয়ে সবাইকে কমবেশি দেখা যায় এই পোশাকে। প্লাস পয়েন্টের কর্ণধার ও ডিজাইনার সাইফুল ইসলাম বিপুল বলেন, ‘ফ্যাশনের একটি ভিন্ন অনুষঙ্গ হিসেবে নানা ডিজাইনের থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট বাজারে নিয়ে এসেছে প্লাস পয়েন্ট। ফ্যাশনের যে কত রকম পরিবর্তন হচ্ছে তার কোনো ঠিক নেই। আজ একধরনের তো কাল আরেক ধরনের। যদি থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্টের কথা বলি তাহলে দেখা যাবে, এই প্যান্টের বিচিত্র রূপ নিয়ে প্রতিনিয়তই ভাবছি আমরা। আর এ কারণে বিভিন্ন আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফ্যাশনেবল থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট নিয়ে এসেছে প্লাস পয়েন্ট। যেমন কখনো নিচের দিকে গোলাকার, কখনো একটু কার্ভ, আবার কখনো ত্রিমাত্রিক। কাপড় আর রঙের বিষয় তো আছেই।’
থ্রি – কো য়া র্টা র  প্যা ন্টে র  স্টা ই ল  ও  র ঙ
বেশির ভাগ প্যান্টের রঙই হালকা ধাঁচের। সাদা, ঘিয়ে, ধূসর, হালকা নীল, বাদামি, অফ হোয়াইটসহ সব রঙেরই পাওয়া যায়। থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্টের আকৃতি কেমন হবে তা নির্ভর করে আপনার রুচির ওপর। যদি হাঁটু পর্যন্ত চান, তাও পাবেন, আবার হাঁটু থেকে সামান্য নিচে চাইলে তাও পাবেন।
কো থা য়  পা বে ন
এসব প্যান্টের সবচেয়ে ভালো দেখা মিলবে ঢাকার নিউমার্কেট ছাড়াও দেশের অধিকাংশ বিপণি বিতানে। আর যদি নিজে বানাতে চান তাহলে ইসলামপুরে রয়েছে এসব কাপড়ের দোকান। রাজধানীর বঙ্গবাজার, গুলিস্তান, নিউমার্কেট, মিরপুর, উত্তরা প্রভৃতি এলাকায় কিনতে পাওয়া যাবে এসব প্যান্ট। এছাড়াও যেতে পারেন ওটু, আর্টিস্টি, ফ্রিল্যান্ড, প্লাস পয়েন্ট, বিগ বস, একস্ট্যাসি, ওয়েসটেকস, মেনস ক্লাবসহ শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটের বিভিন্ন শোরুমে।
দ র দা ম
ব্র্যান্ডের থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট কিনতে আপনাকে গুনতে হবে ৫০০ থেকে এক হাজার ৮০০ টাকা পর্যন্ত। তবে সাধারণ দোকান থেকে কিনলে দাম পড়বে ৩৫০-৮০০ টাকা। বাচ্চাদের থ্রি-কোয়ার্টারের দাম ৮০-১২০ টাকা। মেয়েদের থ্রি-কোয়ার্টার ৮০-২২০ টাকা।
মডেল : সনি ও নাহিদ
পোশাক : প্লাস পয়েসন্ট
ছবি : শওকত মোল্লা
খবরটি সবার সাথে শেয়ার করুন !