/‘ক্ষুধার্ত ও অসুস্থ’ রোহিঙ্গাদের বাঁচানোর তাগিদ জাতিসংঘের

‘ক্ষুধার্ত ও অসুস্থ’ রোহিঙ্গাদের বাঁচানোর তাগিদ জাতিসংঘের

মিয়ানমার থেকে প্রাণভয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য জরুরি ত্রাণ সহায়তার দরকারের কথা বলেছে জানিয়েছে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর। আজ মঙ্গলবার সংস্থার এক বিবৃতিতে মিয়ানমারে অব্যাহত সহিংসতা এবং এর ফলে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

ইউএনএইচসিআরের সদর দপ্তর জেনেভা থেকে আজ সংস্থার মুখপাত্র দুনিয়া আসলাম খান এ বিবৃতি দেন।
বিবৃতিতে বলা হয়, গত মাসে মিয়ানমারে উত্তরের রাখাইন রাজ্যে সংঘাত শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত বাংলাদেশে আনুমানিক ১ লাখ ২৩ হাজার শরণার্থী প্রবেশ করেছে। মিয়ানমারে বেসামরিক মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে। নতুন সৃষ্টি হওয়া এ সংঘাতের মূল কারণ খুঁজে বের করা জরুরি, যাতে করে মানুষ আর পালিয়ে আসতে বাধ্য না হয়। সেই সঙ্গে এই ব্যবস্থাও করা উচিত যাতে তারা নিরাপদে এবং সম্মানের সঙ্গে তাদের বাসস্থানে ফিরতে পারে।
ইউএনএইচসিআরের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘যেসব মানুষ বাংলাদেশে এসেছে তাদের অবস্থা করুণ। অনেকেই তাদের গ্রামের বাড়ি থেকে জঙ্গল, পাহাড়, নদী অতিক্রম করে এসেছে। তারা ক্ষুধার্ত, দুর্বল ও অসুস্থ।’
বিবৃতিতে বলা হয়, এবার আসা নতুন রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে আছে। ৩০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা কুতুপালং ও নয়াপাড়ায় নিবন্ধিত দুই আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে। অন্যরা স্থানীয় বিভিন্ন গ্রামে আশ্রয় নিয়েছে। অগণিত সংখ্যক রোহিঙ্গা এখন সীমান্তে আটকে পড়ে আছে।
বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গারা আশ্রয়কেন্দ্রের অভাবে স্কুল, কমিউনিটি সেন্টার, মাদ্রাসায় আশ্রয় নিয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে। বলা হয়, নতুন করে রোহিঙ্গাদের এ ঢলে অনেক পিতৃমাতৃহীন শিশু আছে। তাদের বাড়তি সুরক্ষা এবং যত্ন দরকার। এসব মানুষের জন্য জরুরি ভিত্তিতে আশ্রয় দরকার বলেও জানানো হয় বিবৃতিতে।

খবরটি সবার সাথে শেয়ার করুন !