‘জিপিএ-৫ বিক্রি’র অভিযোগ তদন্তে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কমিটি

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পর শিক্ষা জিপিএ-৫ বিক্রি অভিযোগ তদন্তে এবার মন্ত্রণালয় কমিটি গঠন করেছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের মো. মাহমুদুল-উলকে প্রধান করে সোমবার চার সদস্যের এই কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) অধ্যাপক ইউনুস আলী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্মসচিব (নিরীক্ষা) আহমদ শামীম আল রাজী এবং উপসচিব আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন। কমিটিকে আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে ‘জিপিএ-৫’ বিক্রির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। সোমবার ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই’র পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের জন্য দুটি মাইক্রোবাসের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। এ সময় শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘অভিযোগ তদন্তে আরও একটি কমিটি গঠন করা হচ্ছে। অভিযোগ খতিয়ে দেখতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

সচিবালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন)-এর নেতৃত্বে ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা শিক্ষামন্ত্রীর হাতে দুটি মাইক্রোবাসের চাবি তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল করিম, বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল হক এবং বাংলাদেশ অটো রি-রোলিং মিলস অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য মাসাদুল আলম মাসুদ।

রোববার এই অভিযোগ তদন্ত করতে একটি কমিটি গঠন করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। ঢাকা শিক্ষা বোর্ড পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদফতরের পরিচালক আহাম্মেদ সাজ্জাদ রশীদকে প্রধান করে তিন সদস্যের এই কমিটি গঠন করে।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশন প্রতিবেদনে এইচএসসি পরীক্ষায় টাকার বিনিময়ে জিপিএ-৫ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।