নতুন তারিখে আপত্তি নেই আওয়ামী লীগের

নির্বাচনের তারিখ না পেছালেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে আসতো ব‌লে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কা‌দের। তিনি বলেন, নির্বাচনের নতুন তারিখে আপত্তি নেই আওয়ামী লীগের। তবে তারিখ না পেছালেও ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে আসতো।সোমবার দুপুরে রাজধানীর ধানম‌ণ্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপ‌তি শেখ হা‌সিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে নির্বাচ‌নের তা‌রিখ পেছা‌নোর প্র‌তি‌ক্রিয়ায় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এই কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘নির্বাচনের তারিখ এক সপ্তাহ পেছানোর সিদ্ধান্তকে আওয়ামী লীগ সমর্থন করে। এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার শুধুমাত্র নির্বাচন কমিশনের। এখানে আওয়ামী লীগের কিছু করার নেই। ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনের তারিখ না পেছালেও নির্বাচনে আসতো, এটা আমরা জানতাম। তাদের দাবির প্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই।’

তি‌নি বলেন, ‘এবার মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে বোর্ড বিচার বিশ্লেষণ করে দিবে। প্রার্থীদের যোগ্যতা নির্ধারণে কয়েকটি সার্ভে করা হয়েছে। বিদেশি সংস্থাও সার্ভে করে তথ্য আপডেট করে দিয়েছে। ১৪ নভেম্বর থেকে মনোনয়ন প্রার্থীদের ইন্টারভিউ শুরু হবে। কিছু কিছু প্রার্থীর ইন্টারভিউ সভানেত্রী শেখ হাসিনা সরাসরি নিবেন।’

আওয়ামী লীগের টিকেট পাওয়া মানেই বিজয়ী এটা ভ্রান্ত ধারণা উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘কিছু কিছু পত্রিকায় এসেছে যে আওয়ামী লীগের টিকেট পাওয়া মানেই বিজয়ী। এটা একটি ভ্রান্ত ধারণা। যারা মনে করে তারা বড় মাপের ভুল করছে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান নওফেল প্রমুখ।