/বিকাল ৫টার মধ্যে কোটার প্রজ্ঞাপন দাবি

বিকাল ৫টার মধ্যে কোটার প্রজ্ঞাপন দাবি

ঢাবি প্রতিনিধি

আজ বিকাল ৫টার মধ্যে কোটার প্রজ্ঞাপন দাবি করেছে কোটা সংস্কার ইস্যুতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। রোববার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর।

সংবাদ সম্মেলনে সরকারের উদ্দেশ্যে নুর বলেন, আপনারা আন্তরিক হয়ে থাকলে প্রজ্ঞাপন বাতিলে এত দেরি কেন?  সংসদে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্য এক ধরনের অলিখিত আইন। তিনি কোটা বাতিলের ঘোষণা দেয়ার পরেও প্রজ্ঞাপন জারিতে এতো দেরি হওয়া কাম্য নয়।

তিনি বলেন, বাংলার ছাত্রসমাজ কারও প্রতিপক্ষ নয়। বিকাল পাঁচটার মধ্যে প্রজ্ঞাপন দিন। এই সময়ের মধ্যে কোটার ঘোষণা দিলে ছাত্ররা রাজপথে থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ কোটার সংস্কার চেয়েছে, বিলুপ্তি নয়। এসময় তিনি ‘একই পরিবার থেকে একজনের বেশি নয়, একবারের বেশি কোটা নয়।’ এই দাবির পুনরুল্লেখ করেন। আন্দোলনকারীরা সরকারের আন্দোলনের সহযোগী বলেও বক্তব্যে উল্লেখ করেন তিনি।

নুর বলেন, ‘আমরা ৫৫ শতাংশ থেকে কোটা কমিয়ে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবি জানিয়েছি। পরে ১০ শতাংশ থেকে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত কোটার সঙ্গে সহমত পোষণ করেছি।’

এদিকে, আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা ও কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে ফের বি‌ক্ষোভ করেন। রোববার বেলা ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে এ বিক্ষোভ শুরু হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ ঢাকার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা মিছিল সহকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে জড়ো হয়। এসময় তারা বিভিন্ন ধরনের শ্লোগান দিতে থাকে। এগুলো হলো- ‘আর নয় কালক্ষেপণ, এবার চাই প্রজ্ঞাপন, ‘প্রজ্ঞাপনে তালবাহানা, চলবে না চলবে না, ‘দাবি মোদের একটাই, প্রজ্ঞাপন প্রজ্ঞাপন, ‘আমার ভায়ের রক্ত, বৃথা যেতে দিব না, ‘লেগেছে লেগেছে, রক্তে আগুন লেগেছে, ইত্যাদি।

বিক্ষোভের শুরুতে কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর বলেন, সারা বাংলার ছাত্র সমাজ আজ একতাবদ্ধ। তারা তাদের অধিকার নিয়ে রাজপথে। ছাত্র সমাজ কখনও ব্যর্থ হতে পারে না। প্রজ্ঞাপন না নিয়ে তারা ঘরে ফিরবে না।

এর আগে গত ৯ মে বুধবার দুপুরে একই দাবিতে টিএসসিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে আন্দোলনকারীরা। এ সময় বৃহস্পতিবারের মধ্যে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন না হলে আজ রবিবার থেকে প্রতিটি কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেয় কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা।

খবরটি সবার সাথে শেয়ার করুন !