মারা গেলেন বাসের চাপায় পা হারানো রোজিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

অবশেষে মারা গেলেন রাজধানীর বনানীতে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে পা হারানো রোজিনা (১৮)।

রোববার সকাল সোয়া ৭টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে রোজিনার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার বাবা রসুল মিয়া। রসুল মিয়ার সাত সন্তানের মধ্যে রোজিনা দ্বিতীয়। তার মায়ের নাম রাবেয়া খাতুন।

প্রসঙ্গত, ২০ এপ্রিল রাত ৯টায় বনানী এলাকায় রোজিনাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে তার পায়ের ওপর দিয়ে চলে যায় বিআরটিসির একটি দোতলা বাস। এতে ডান পায়ে গুরুতর আঘাত পান রোজিনা। সঙ্গে সঙ্গে তাকে উদ্ধার করে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ওই বাসের চালক শফিকুল ইসলাম মুন্নাকে আটক করে পুলিশ। তাকে ১ দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়।

রোজিনা নিকেতনের ১২ নম্বর সড়কের একটি বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করতেন। ওইদিন বান্ধবীর বাসা থেকে ফেরার পথে তিনি এ দুর্ঘটনার শিকার হন।

এর আগে বনানীতে বিআরটিসির বাসে চাপা পড়ে পা হারানোর পরপরই তাকে অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (পঙ্গু হাসপাতাল) নেয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার কিছুটা অবনতি হলে ২৫ এপ্রিল তাকে ঢামেক হাসপাতালে বার্ন ইউনিটের হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিটে (এইচডিইউ) ভর্তি করা হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন তিনি।