মিয়ানমারকে ৮ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা হস্তান্তর

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, নিপীড়নের মুখে পালিয়ে আসা এক হাজার ৬৭৩টি পরিবারের ৮ হাজার ৩২ জন রোহিঙ্গার তালিকা মিয়ানমারকে দিয়েছে বাংলাদেশ। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার প্রাথমিক উদ্যোগ হিসেবে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে এই তালিকা দেয়া হয়েছে।
শুক্রবার সন্ধ্যায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লেফটেন্যান্ট জেনারেল কিয়াও সোয়ের নেতৃত্বে  এই বৈঠক হয়। বৈঠকে বাংলাদেশের প্রতিনিধি  দলে ১৮ জন ও মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলে ১৫ জন সদস্য অংশ নেন। বিকাল ৩টায় বৈঠক শুরু হয়ে শেষ হয় সন্ধ্যায়।
দুই দেশের শূন্য রেখায় (নো ম্যানস ল্যান্ডে) অবস্থানকারী ৬  থেকে ৭ হাজার রোহিঙ্গার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি এ বিষয়ে মিয়ানমারের একটি জেলায় দুই দেশের আলোচনা হবে। সেখানে মিয়ানমার জানাবে এদের কীভাবে তারা ফেরত নেবে।
বৈঠক সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ ও আন্তরিক পরিবেশে আলোচনা হয়েছে। তারাও পজেটিভ মুড নিয়ে এসেছিল। আমরা ১১ লাখের কাছাকাছি রোহিঙ্গার লিস্ট করেছি, সেখানে তারা (মিয়ানমার) বলেছিলেন ফ্যামিলি ওয়াইজ লিস্ট দিতে। আমরা শুক্রবার এক হাজার ৬৭৩টি পরিবারের ৮ হাজার ৩২ জনের তালিকা করে তাদের দিয়েছি। তারা এটি কর্ডিয়ালি রিসিভ করেছেন। তারা (মিয়ানমার) এটা (তালিকা) যাচাই-বাছাই করে আমাদের জানাবেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের নেতৃত্বে বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলে জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও সংশ্লিষ্ট দফতরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।