মিয়ানমারে বিদ্রোহী হামলায় নিহত ১৯

মিয়ানমারে চীনা সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় সশস্ত্র বিদ্রোহী দল তাং ন্যাশনাল আর্মির (টিএনএলএ) হামলায় কমপক্ষে ১৯জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ২০জন।
নিহতদের মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যও রয়েছেন। শনিবার শান প্রদেশের মিউজ শহরে এই ঘটনা ঘটে। মিয়ানয়ার সরকারের এক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।
খবরে বলা হয়, শনিবার মিউজ শহরে তিন দফা হামলা চালায় টিএনএলএ। টিএনএলএ’র মুখপাত্র মাই আইক কিয়াও বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, তারা একটি সামরিক পোস্ট ও শহরের বাইরে অবস্থিত একটি ক্যাসিনোতে হামলা চালিয়েছে।
উল্লেখ্য, টিএনএলএসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু জাতিগোষ্ঠী-ভিত্তিক বিদ্রোহী দল বহু বছর ধরেই স্বায়ত্তশাসন ও মৈত্রিতন্ত্র অর্জনের উদ্দেশ্যে সরকারি বাহিনীর সঙ্গে লড়াই করে আসছে।
অং সান সুচি ২০১৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর বলেছিলেন, মিয়ানমারের ভেতরে সংঘাত দূরীকরণে তার প্রধান অগ্রাধিকার থাকবে। কিন্তু তিনি সামরিক বাহিনীর সঙ্গে ক্ষমতা ভাগ করে দেশ পরিচালনা করেন। আর সামরিক বাহিনীই এতদিন ধরে বিদ্রোহীদলগুলোর সঙ্গে যুদ্ধ করে আসছে।
২০১৭ সালে প্রকাশিত এশিয়া ফাউন্ডেশনের এক প্রতিবেদন অনুসারে, মিয়ানমারে এক তৃতীয়াংশেরও বেশি শহরই দীর্ঘ সময় ধরে সংঘাতে জর্জরিত। এই বছরের ফেব্রুয়ারিতে সুচি দুটি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর যুদ্ধ বিরতির চুক্তি করাতে সক্ষম হন। ক্ষমতা গ্রহণের আগে আরো আটটি সম্প্রদায়ের সঙ্গে এমন চুক্তি সম্পন্ন করেছিলেন তিনি।