/মুশফিকের কিপিং নিয়ে ভাবনায় বিসিবি

মুশফিকের কিপিং নিয়ে ভাবনায় বিসিবি

উইকেটের পেছনে ক্রিকেটে পা রাখার শুরু থেকেই দায়িত্ব পালন করছেন মুশফিক। তার উপর গত কয়েক বছর ধরে তার কাঁধে বাড়তি দায়িত্ব অধিনায়কত্বের। আবার দলের অন্যতম ব্যাটসম্যান হিসেবেও বিশাল ভূমিকা তার। মুশফিকুর রহিমের কাছে এই তিনে মিলে কতটা সহজ কিংবা কতটা কঠিন তা নিয়ে ইতোমধ্যেই ভাবতে শুরু করেছেন নির্বাচকরা।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সদ্য শেষ হওয়া হোম সিরিজের ঢাকা টেস্টে টেস্ট অধিনায়কের কিপিংটা ছিলো যথেষ্ট প্রশংসনীয়। কিন্তু চট্টগ্রাম টেস্টে টানা ১২০ ওভার কিপিং করার পর বেশ ভাবনায় পড়েছেন দর্শক হতে শুরু করে নির্বাচকরাও।

গত মার্চে শ্রীলঙ্কা সফরের খবর। এই সফরের গল টেস্টে মুশফিক অধিনায়কত্বের পাশাপাশি ছিলেন শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে। কিপিংয়ের দায়িত্ব তখন পড়েছিলো লিটন দাসের উপর। এই সিরিজেও মুশফিককে এমন ভূমিকাতেই রাখতে চেয়েছিলেন নির্বাচকরা। কিন্তু মুশফিকের অনড় অবস্থানের কারণে তার সম্মানটাকেই বড় করে দেখেছেন কর্তারা।

শত আলোচনার পরও মুশফিকের কথার গুরুত্বকেই আলাদা করে দেখছেন সিনিয়ররা। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান আজ সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানিয়েছেন,‘বোর্ড সিনিয়র খেলোয়াড়দের অনেক সম্মান করে। তাদের আইডিয়া-পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে নেয়। এটাও সত্যি, এই গরমে সারা দিন কিপিং করে চারে ব্যাটিং করা কঠিন। ওরও দায়িত্ব আছে। সিনিয়র খেলোয়াড় ও অধিনায়ক হিসেবে দলের স্বার্থ ওকেই বেশি দেখতে হয়। আগেও টেস্টে আমরা তাকে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলিয়েছি। সে আমাদের দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান।’

গতকালই ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেছিলেন, ‘১২০ ওভার কিপিং করার পর যদি আবার ৪ নম্বরে ব্যাটিং করতে হয় তাহলে আমি বলব, এটা আমার একার দায়িত্ব নয়।’

টেস্টের মেজাজ বুঝে দলকে টানার দক্ষতা কিংবা মানসিক ক্ষমতা যে মুশফিকেরই আছে, সেটা মানেন বাংলাদেশের ক্রিকেটানুরাগীরা। তার কথা মাথা রেখেই বাড়তি দায়িত্ব হিসেবে কিপিং করা থেকে অব্যহতির কথা ভাবছেন নির্বাচকরা। আকরাম খান জানান, ‘উভয় পক্ষের বসে ঠিক করতে হবে। এই ভাবনাটা ছিল বলেই লিটনকে দলে রাখা (অস্ট্রেলিয়া সিরিজে)। ওর মাথায় যেহেতু কিপিংয়ের বিষয়টা এসেছে, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে যেটা ভালো হয় আমরা সেটা করব।’

ইতোমধ্যেই আইসিসি টেস্ট র‌্যাংকিং-এ ব্যাটসম্যানদের তালিকায় ক্যারিয়ার সেরা অবস্থানে পৌঁছেছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। চট্টগ্রাম টেস্টে ৬৮ ও ৩১ রান করেন মুশফিকুর। তাই র‌্যাংকিং-এ একধাপ এগিয়ে ২২তম স্থানে উঠেছেন তিনি।

খবরটি সবার সাথে শেয়ার করুন !