/রোনাল্ডোর একমাত্র গোলে মরক্কোকে হারালো পর্তুগাল

রোনাল্ডোর একমাত্র গোলে মরক্কোকে হারালো পর্তুগাল

অধিনায়ক ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর একমাত্র গোলে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে মরক্কোকে ১-০ গোলে হারিয়েছে পর্তুগাল। টুর্নামেন্টে দু’ম্যাচে মোট ৪টি গোল করে সবার উপরে রয়েছেন রোনাল্ডো। এই জয়ে ২ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে পৌছে গেল পর্তুগাল। দু’ম্যাচের দু’টিতেই হেরে শুন্য পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের নীচে মরক্কো।
এবারের বিশ্বকাপে স্পেনের বিপক্ষে তীব্র প্রতিন্দ্বন্দিতাপূর্ণ নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৩-৩ গোলে ড্র করে পর্তুগাল। তাই শেষ ষোলোতে যাবার পথ মসৃন করতে মরক্কোর বিপক্ষে জয়ই প্রধান লক্ষ্য পর্তুগিজদের। পর্তুগাল ড্র করলেও নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইরানের কাছে ১-০ গোলে হেরে যায় মরক্কো।
জয়ের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামের ম্যাচে ৪ মিনিটই গোল আদায় করে নেয় পর্তুগাল। জোয়াও মৌতিনহোর ক্রস থেকে হেডের সহায়তায় গোল করে দলকে লিড এনে দেন আগের ম্যাচে হ্যাট্টিক করা পর্তুগালের অধিনায়ক ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো।
আগের ম্যাচে স্পেনের সঙ্গে হ্যাটট্রিক করে ইউরোপিয়ান অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি আন্তর্জাতিক গোলের রেকর্ডের তালিকায় পুসকাসকে স্পর্শ করেছিলেন রোনাল্ডো। আজকের গোলে পুসকাসকে ছাড়িয়ে গেলেন তিনি। হাঙ্গেরির হয়ে ৮৫ ম্যাচে ৮৪ গোল করেছিলেন পুসকাস। আর জাতীয় দলের হয়ে নিজেদের ১৫২তম ম্যাচে ৮৫তম গোল করলেন রোনাল্ডো। ফুটবল ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড রোনাল্ডো এখন দ্বিতীয়স্থানে। ইরানের হয়ে ১৪৯ ম্যাচে ১০৯ গোল করে শীর্ষে আছেন আলী দায়ি।
পিছিয়ে পড়ে ম্যাচে সমতা আনতে নিজেদের গোছানোর চেষ্টা করে মরক্কো। সেই মিশনে সফল হয় তারা। মধ্যমাঠের দখল নিয়ে পর্তুগালের উপর চাপ সৃষ্টি করে মরক্কো। এতে কিছুটা রক্ষণাত্মক হয়ে পড়ে পর্তুগাল। কিন্তু প্রথমার্ধে আর গোলের দেখা পায়নি মরক্কো। তাই রোনাল্ডোর গোলে এগিয়ে থেকে ম্যাচের বিরতিতে যায় পর্তুগাল।
প্রথমার্ধে বেশির ভাগ সময় বল দখলে রাখার পাশাপাশি পর্তুগালের গোলমুখে ৮টি শটও নেয় মরক্কো। এই ধারাবাহিকতা ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেও ধরে রাখে মরক্কো। কিন্তু কাঙ্খিত গোলের দেখা পাচ্ছিলো না তারা।
মরক্কোর মত আক্রমনের চেষ্টা করেছে পর্তুগালও। ৮২ মিনিটে পর্তুগালের প্রথম গোলের ¯্রষ্ঠা মৌতিনহো পাস থেকে বল নিয়ে মরক্কোর সীমানায় প্রবেশ করেন ব্রুনো ফার্নান্দেস। ডান-পায়ে গোলমুখে শটও নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু মরক্কোর গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় সেটি ভেস্তে যায়।
কিছুক্ষণ পর পাল্টা আক্রমন চালায় মরক্কো। মধ্যমাঠ থেকে বল পেয়ে ডি-বক্স থেকে শট নিয়েছিলেন নাবিল ডিরার। কিন্তু সেটি গোলবার ঘেষে বাইরে চলে যায়। শেষ পর্যন্ত দু’দলের গোল মিসে স্কোরলাইনে আর কোন পরিবর্তন ঘটেনি। ফলে ১-০ গোলে ম্যাচ জিতে নেয় পর্তুগাল।
আগামী ২৫ জুন সারানস্কে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে ইরানের মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। একই দিন কালিনিনগ্রাদের স্পেনের বিপক্ষে লড়বে মরক্কো।

খবরটি সবার সাথে শেয়ার করুন !