শহীদুল্লাহ কায়সার ছিলেন জাতির মেধাবী সন্তান

বক্তারা বলেছেন, শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সার দেশের সাংবাদিকতা, সাহিত্য, রাজনীতি ও সংস্কৃতির একজন কীর্তিমান ব্যক্তিত্ব। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় হানাদার বাহিনী জাতির এই বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করে আমাদের মেধা ও মননে আঘাত করেছে।
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিভাগ আয়োজিত ‘গুণীজন স্মরণ’ অনুষ্ঠানে শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সারের উপর আলোচনায় বক্তারা এ কথা বলেন।
গতকাল সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন ড. মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. মাহবুবুল হক। আলোচনায় অংশ নেন ড. হোসনে আরা জলি , ড, রতন সিদ্দিকী।
একই অনুষ্ঠানে প্রয়াত চলচ্চিত্রকার আলমগীর কবীর স্মরণে আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক জুনায়েদ আহমেদ ও শামীম আখতার।
ড. মাহবুবুল হক বলেন, শহীদুল্লাহ কায়সার ছিলেন জাতির এক মেধাবী সন্তান। প্রগতিশীল রাজনীতি করেন ছাত্র জীবন থেকে। একই সাথে লেখালেখি করেন। ছাত্র জীবন থেকেই তার সাংবাদিকতা জীবন শুরু হয়। মেধাবী এই সন্তান বেঁচে থাকলে জাতি তার কাছ থেকে আরো অনেক সেবা লাভ করতে পারতো।
ড. রতন সিদ্দিকী বলেন, পাক-বাহিনীর বুদ্ধিজীবী হত্যার নীলনকশার শিকার হন শহীদুল্লাহ কায়সার। তিনি কারাগারে বসে লিখেছিলেন অসংখ্য লেখা। সাংবাদিকতায় রেখেছিলেন মেধার স্বাক্ষর। এই বীর সন্তান আজীবন আমাদের স্মরণে থাকবেন।
শিল্পকলা একাডেমির গুণীজন স্মরণ অনুষ্ঠানের শেষ দিনে আগামীকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে চাষী নজরুল ইসলাম ও আবদুল্লাহ আল মামুন স্বরণে আলোচনা সভা, নাটক ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap