আরও মসজিদে হামলা চালাত ক্রাইস্টচার্চের সেই বন্দুকধারী

নিউজিল্যান্ডে দুটি মসজিদে হামলা চালিয়ে বাংলাদেশিসহ ৫১ জনকে হত্যাকারী শ্বেতাঙ্গ ব্রেন্টন টরেন্টের তৃতীয় আরেকটি মসজিদেও হামলার পরিকল্পনা ছিলো। যত বেশি মানুষকে সম্ভব হত্যা করতে চেয়েছিলেন তিনি। ২০১৯ সালের মার্চে এই শহরেরই দুটি মসজিদে নৃশংস ওই হামলাটি চালিয়েছিল অস্ট্রেলীয় শ্বেতাঙ্গ বর্ণবাদী ব্রেন্টন টরেন্ট। তৃতীয় আরেকটি মসজিদে হামলা চালানোর পরিকল্পনার পাশাপাশি সে মসজিদগুলো পুড়িয়েও দিতে চেয়েছিল। সেই সাথে চেয়েছিল যত বেশি লোককে সম্ভব হত্যা করা।

বিবিসি বলছে, ২৯ বছর বয়সী ট্যারেন্ট আজীবন কারাগারে শাস্তি পাবেন, সম্ভবত কোনো প্যারোলও পাবেন না তিনি। নিউজিল্যান্ডে এ ধরনের সাজার প্রথম ঘটনা এটি। এর আগে দেশটিতে কেউ এ ধরনের কোনো সাজার মুখোমুখি হয়নি। তার বিরুদ্ধে আনা ৫১টি খুন, ৪০টি খুনের চেষ্টা ও সন্ত্রাসবাদের একটি অভিযোগের দায় স্বীকার করেছে সে।

হামলাকারী নিউ জিল্যান্ডের মসজিদগুলোর বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করেন, মসজিদগুলোর নকশা, অবস্থান ও অন্যান্য বিস্তারিত নিয়ে অনুসন্ধান চালান। সবচেয়ে বেশি লোক জড়ো হয় এমন এক সময়ে হামলা চালানোর লক্ষ্য নিয়ে এসব করেছিল সে।

হামলার কয়েক মাস আগে ক্রাইস্টচার্চে গিয়ে একটি ড্রোন উড়িয়ে সে তার প্রথম লক্ষ্য আল নূর মসজিদ পর্যবেক্ষণ করে নেয়। আল নূর মসজিদ ও লিনউড ইসলামিক সেন্টারের পাশাপাশি অ্যাশবার্টন মসজিদেও হামলার লক্ষ্য ছিল তার। হামলার দিন ট্যারান্ট আল নূর মসজিদ থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকারী লোকজনকে রাস্তায়ও গুলি করে । সে এই মসজিদ চত্বর ত্যাগ করার সময় এদের মধ্যে নিহত একজন, আনসি আলিবাবার শরীরের ওপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে চলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap