এমপি নয়, পাপুল গ্রেফতার হয়েছেন ব্যবসায়ী হিসেবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

লক্ষ্মীপুর-২ আসনের এমপি কাজী শহীদ ইসলাম পাপুলকে এমপি হিসেবে নয়, ব্যবসায়ী হিসেবে কুয়েত সরকার গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তবে মানবপাচার ও অর্থপাচারের বিরুদ্ধে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি একথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী  বলেন, এমপি পাপুল কুয়েতে সরকারি পাসপোর্ট নিয়ে যাননি। সেখানে তিনি ২৯ বছর ধরে ব্যবসা করেন, তিনি  সে দেশের নাগরিক হিসেবে গিয়েছেন। আমরা তার বিষয়ে জানতে কুয়েত সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তবে কুয়েত সরকার এখনো কোনো তথ্য দেয়নি। আমরা এমপি পাপুলের বিষয়ে ঢাকায় কুয়েতের রাষ্ট্রদূতের কাছেও জানতে চেয়েছি। এক সপ্তাহ আগে জানতে চাইলেও দূতাবাস এখনো কোনো তথ্য দেয়নি।

পাপুলের বিষয়ে ড. মোমেন বলেন, বিদেশে একজন এমপির বিরুদ্ধে মানবপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগ এসেছে, এটা খুবই দুঃখজনক। অথচ আমরা মানবপাচারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি। আমরা বলতে চাই, সরকার মানবপাচার ও অর্থপাচারে কোনো ছাড় দেবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে জিরো টলারেন্স অবস্থান নিয়েছেন।

ড. মোমেন আরো বলেন, পাপুলের বিষয়ে কুয়েত সরকার থেকে কোনো অভিযোগ এলে আমরা অবশ্যই তদন্ত করবো।

মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতার সাংসদ শহিদ ইসলাম পাপুলের মদদদাতা হিসাবে ব্যবসায়ী থেকে কূটনীতিক বনে যাওয়া রাষ্ট্রদূত এসএম আবুল কালামের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap