পিয়নের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৩০ কোটি টাকা!

লিবিয়ার মানবপাচারের ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে একটি প্রতিষ্ঠানের পিয়নকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তদন্তকালে ওই পিয়নের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ২০ থেকে ৩০ কোটি টাকা পাওয়া যায়। মানবপাচার করেই এ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে গ্রেফতার ওই পিয়ন।

সোমবার (৬ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে চাঞ্চল্যকর এ তথ্য জানিয়েছেন সিআইডি প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান।

তিনি বলেন, লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যা ও মানবপাচারের ঘটনায় বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় ২৬ টি মামলা দায়ের হয়েছে। এরমধ্যে ১৫ টি মামলার তদন্তভারে সিআইডির হাতে। বাকি মামলাগুলো অন্যরা মনিটর করছে। লিবিয়ার ঘটনা পর থেকে এ পর্য্ন্ত মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত মোট ৬৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে সিআইডি হাতে গ্রেফতার হয়েছে ৩৬ জন। তাদের বিরুদ্ধে মানিলন্ডারিং আইনেও মামলা দায়ের করা হবে।

তিনি বলেন, অনেকগুলো তথ্য পেয়েছি, কিছু ডকুমেন্টস পেয়েছি, আবার চক্রের সদস্যদের নাম পেয়েছি। দু’টি মন্ত্রণালয় থেকেও আমরা পাচারের সঙ্গে জড়িত অনেকের নাম পেয়েছি। এছাড়া ভুক্তভোগী, তাদের পরিবার ও বিভিন্ন দেশের অ্যাম্বাসির কাছ থেকে অনেক নাম পেয়েছি। তবে তদন্তের স্বার্থে এখনই কারও নাম বা সংখ্যা আমরা প্রকাশ করছি না। তবে লিবিয়ায় মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত তিনজনের ফাইল আমরা খুলেছি। তাদের বিষয়ে তদন্ত চলছে।

তিনি  আরও বলেন, মানবপাচারের মামলাগুলোতে অনেকগুলো চেইন আছে। কেউ কথা বলছে, কেউ গ্রাহক সংগ্রহের কাজ করে, কেউ ভিসার ব্যবস্তা করছে, কেউ টিকিটের ব্যবস্তা করছে, কেউ আর তাদের এক জায়গা থেকে অন্য জায়গাতে নিয়ে যায়, কেউ আবার তাদের আরেক দেশে নিয়ে যায়, কেউ থাকে ওই দেশ থেকে আবার অন্য দেশে নিয়ে যায়, এ মানবপাচারের সঙ্গে বড় একটি চেইন কাজ করে থাকে। এ চেইনের গোড়ায় পৌঁছানো কিন্তু সত্যিই খুব কঠিন কাজ। তবে আমরা কাজ করছি। মানবপাচারের মামলাগুলোর তদন্ত খুব কঠিন। কারণ কাকে কিভাবে পাঠালো, কোথা খেকে রিক্রুট করলো, কার মাধ্যমে গেলো। এসব প্রমাণ করা খুবই কঠিন। সিআইডি এ বিষয়ে খুব গুছিয়ে কাজ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap