বাংলাদেশে করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দাবি

করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দাবি আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছে বাংলাদেশের গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালসের সহযোগী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টায় তেজগাঁও প্রধান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করে গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। এর আগে বুধবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছিল গ্লোব বায়োটেক।

ভ্যাকসিন উদ্ভাবনে ল্যাবে এন্টিবডি তৈরির দাবি করে গ্লোব বায়োটেক জানায়, গ্লোবাল রেসে ৫০ তম স্থানে থাকতে পারে বাংলাদেশ।

সংবাদ সম্মেলনে গ্লোব বায়োটেক কর্মকর্তারা, প্রাণিদেহে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে এন্টি এন্টিবডি পাওয়ার দাবি করেছেন। ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান আগামী ৬ থেকে ৭ সপ্তাহ পর ভ্যাকসিনটির পরীক্ষামূলক প্রয়োগে যাবে বলেও জানান তারা।

প্রতিষ্ঠানটির দাবি, এ পর্যায়ে ভ্যাকসিনটি দ্বিতীয় ধাপে এনিমেল মডেলে ট্রায়াল করা হবে। এজন্য ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ সময় লাগবে। এরপরই এটি মানব শরীরে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে যাওয়া যাবে। ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ পর ভ্যাকসিনটি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে যাওয়ার জন্য কোম্পানিটি সরকারি কর্তৃপক্ষের কাছে অনুমতি চাইবে। অনুমতি পেলে তারা ট্রায়ালে যাবে।

ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেকের দাবি, প্রাথমিকভাবে করোনার ভ্যাকসিনে সফল হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এনিমেল পর্যায়ে এটা সফল হয়েছে। এখন এ টিকা মানবদেহেও সফলভাবে কাজ করবে বলেও আশা তাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link
Powered by Social Snap